সরকারের ঋণ জোগাতে নতুন কৌশল বাংলাদেশ ব্যাংকের

Published 04/07/2012 by idealcollect

ঋণ আমানতের অনুপাত তিন থেকে ৪ শতাংশ কমিয়ে আনা হবে

সরকারের ঋণের সংস্থান করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক নতুন কৌশল গ্রহণ করছে। এ কৌশলের অংশ হিসেবে ঋণ আমানতের অনুপাত (ক্রেডিট ডিপোজিট রেশিও-সিডিআর) তিন থেকে চার শতাংশ কমিয়ে আনা হবে। এতে ব্যাংকগুলোর বেসরকারি খাতে ঋণের পরিমাণ কমে যাবে। হাতে থাকবে উদ্বৃত্ত অর্থ। পাশাপাশি কলমানি মার্কেটে (ব্যাংকগুলোর নিজেদের মধ্যে স্বল্প সময়ের জন্য ধার দেয়া নেয়ার বাজার) সুদের হার কমিয়ে ১০ শতাংশের নিচে আনতে ব্যাংকগুলোকে বাধ্য করা হবে। এতে ব্যাংকগুলো উদ্বৃত্ত অর্থ কলমানি মার্কেটে না খাটিয়ে বেশি মুনাফার আশায় সরকারের ঋণের জোগান দেবে। নতুন এ কৌশল বাস্তবায়ন করতে শিগগিরই ব্যাংকগুলোর জন্য নির্দেশনা জারি করা হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের শীর্ষ পর্যায়ের এক কর্মকর্তা গতকাল নয়া দিগন্তকে এ তথ্য জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ব্যাংকিং খাতে চলছে তীব্র তারল্য সঙ্কট। বিশেষ করে যেসব ব্যাংক সরকারের ঋণের জোগান দিচ্ছে তারা পড়েছে বিপাকে। সরকারের বাধ্যতামূলক ঋণের জোগান দেয়া প্রাইমারি ডিলার (পিডি) ব্যাংকগুলোতে হাহাকার চলছে। তারা দৈনন্দিন ব্যয় মেটাতে প্রতি দিনই উচ্চ সুদে অর্থাৎ পৌনে ১১ শতাংশ সুদে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে বিশেষ তারল্যসহায়তার আওতায় ধার নিচ্ছে। গতকালও বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এমন পাঁচ হাজার ২৪৮ কোটি টাকা ধার নিয়েছে সঙ্কটে পড়া ব্যাংকগুলো।
ব্যাংকাররা জানিয়েছেন, তাদের তারল্য সঙ্কটের একমাত্র কারণ সরকারের ঋণের জোগান দেয়া। সরকারের সাথে এক চুক্তির আওতায় ব্যাংকগুলোকে বাধ্যতামূলকভাবে সরকারের ঋণের জোগান দিতে হচ্ছে। এ ঋণের বিপরীতে সরকার ব্যাংকগুলোকে ট্রেজারি বিল ও বন্ড নামক কাগুজে মুদ্রা ধরিয়ে দেয়া হচ্ছে। এসব বিল ও বন্ড কার্যত আমানতের বিপরীতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে বাধ্যতামূলক তরল অর্থ সংরক্ষণ অর্থাৎ এসএলআর সংরক্ষণের কাজে লাগানো ছাড়া অন্য কোনো কাজে আসছে না। আবার এসএলআর সংরক্ষণ করতে যে পরিমাণ বিল ও বন্ড প্রয়োজন ব্যাংকগুলোর হাতে তার চেয়ে অতিরিক্ত প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকার বন্ড ও বিল রয়েছে। এসব কাগুজে মুদ্রা বিনিময় করতে না পারায় এগুলো এখন ব্যাংকগুলোর গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
এ পরিস্থিতিতে সরকারের সাথে চুক্তিবদ্ধ পিডি ব্যাংকগুলোর পক্ষে সরকারকে নতুন করে ঋণের জোগান দেয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সরকারের ঋণের জোগান দেয় এমন একটি পিডি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানিয়েছেন, উচ্চ সুদে স্বল্প মেয়াদে যেটুকু আমানত সংগ্রহ করছেন তার বেশির ভাগই সরকারের দীর্ঘমেয়াদি ঋণের জোগান দিতে হচ্ছে। বেসরকারি খাতে নতুন করে ঋণ দিতে পারছেন না। এ অবস্থা প্রায় সব পিডি ব্যাংকেরই। সামনে সরকারের ২৩ হাজার কোটি টাকা কিভাবে ঋণের জোগান দেবেন তা নিয়ে তারা মহাদুশ্চিন্তায় আছেন। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য তারা বারবার বাংলাদেশ ব্যাংকের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
বাংলাদেশ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা গতকাল নয়া দিগন্তকে জানিয়েছেন, পিডি ব্যাংকগুলোকে বাঁচানোর জন্যই নতুন এ কৌশল গ্রহণ করা হয়েছে। প্রথমে সব ব্যাংককে সরকারের ঋণের জোগানে বাধ্য করতে চিন্তুা করা হয়েছিল। কিন্তু এ প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে জটিলতা দেখা দেয়ায় তা থেকে সরে আসা হয়েছে।
পরে এসএলআর বাড়ানোর জন্য কেউ কেউ মতামত দিয়েছিলেন। কিন্তু এটা হিতে বিপরীত হতে পারে এ আশঙ্কায় এ প্রক্রিয়া থেকেও সরে আসা হয়। সর্বশেষ এসএলআর বিকল্প হিসেবে লিকুইডিটি কাভার রেশিও অর্থাৎ এলসিআর নামক নতুন এক ফর্মুলার আনা হয়। কিন্তু চূড়ান্তভাবে তাও বাতিল করা হয়। ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এলসিআর’র প্রভাব ব্যাংকিং খাতে আরো ভয়াবহ হবে। এ কারণে এ পথ থেকে সরে আসা হয়।
সর্বশেষ ঋণ আমানতের অনুপাত কমিয়ে ও কলমানি মার্কেটে সুদের হার কমানোর সিদ্ধান্ত হয়। ওই কর্মকর্তার মতে, বর্তমানে ঋণ আমানতের অনুপাত প্রচলিত ব্যাংকগুলোর জন্য ৮৫ শতাংশ এবং ইসলামী ব্যাংকগুলোর জন্য ৯০ শতাংশ রয়েছে। ঋণ আমানতের অনুপাত হলো ব্যাংকগুলো ১০০ টাকা আমানত নিলে ৮৫ টাকা বিনিয়োগ করতে পারবে। ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ কম করলে তাদের হাতে উদ্বৃত্ত অর্থ থাকবে। আর কলমানি মার্কেটে সুদের হার কমিয়ে আনতে বাধ্য করা হলে ব্যাংকগুলো সরকারি বন্ডে বিনিয়োগ করবে। দীর্ঘমেয়াদি বন্ডের সুদের হার বর্তমানে ১১ শতাংশের ওপরে রয়েছে। এ কৌশল বাস্তবায়নের জন্য আগামী সপ্তাহে ব্যাংকগুলোর চাহিদা অনুযায়ী বিপুল অর্থের সংস্থান করবে বাংলাদেশ ব্যাংক।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, এ কৌশল বাস্তবায়ন হলে বাজারে টাকার প্রবাহ কমে যাবে। ব্যাংকগুলোর হাতে উদ্বৃত্ত অর্থ থাকলে সরকারের ঋণ নেয়া সুবিধা হবে। এতে সরকারকে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে আর ঋণ নিতে হবে না। কেননা বাংলাদেশ ব্যাংক কাগজের নোট ছাপিয়ে সরকারকে ঋণের জোগান দিয়ে থাকে, যা মূল্যস্ফীতিকে উসকে দেয়। ব্যাংক থেকে ঋণ নিলে মূল্যস্ফীতির ঝুঁকিও কমে যাবে।

 

From- আশরাফুল ইসলাম (Naya diganta)

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s

%d bloggers like this: